১ম ধাপের ইউপি নির্বাচনে জয়ী হলেন যারা

বার্তা প্রতিবেদকঃ সারাদেশে ১ম ধাপের ২০৪টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোটগ্রহণ শেষে বেসরকারিভাবে বিজয়ী প্রার্থীদের নাম ঘোষণা শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে বেশ কিছু ইউপি নির্বাচনের চূড়ান্ত ফল পাওয়া গেছে। আমাদের জেলা প্রতিবেদক এবং সংবাদদাতাদের পাঠানো খবর অনুযায়ী বেসরকারিভাবে বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন।

পিরোজপুর:

প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পিরোজপুরে ৩২টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে ১৮টিতে নৌকা, ১১টিতে স্বতন্ত্র ও ৩ ইউনিয়নে আনোয়ার হোসন মঞ্জু’র (জেপি) সমর্থিত সাইকেল প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। বেসরকারিভাবে এসব ইউনিয়নের ফলাফল পাওয়া গেছে।

জেলার সরদ উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের মধ্যে কদমতলা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. সিহাব শেখ, কলাখালী ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী হেদাতুল ইসলাম মিস্টার, শারিকতলা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মো. আজমির হোসেন, টোনা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মো. ইমরান হোসেন বিজয়ী হয়েছেন।

জেলার নাজিরপুর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের মধ্যে সদর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মো. মোশারেফ হোসেন খান, শেখমাটিয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মো. আতিয়ার রহমান চৌধুরী নান্নু, মাটিভাঙ্গা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জাহিদুল ইসলাম বিলু, মালিখালী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. রুহুল আমীন বাবলু দাড়িয়া বিজয়ী হয়েছেন।

জেলার ইন্দুরকানীর বালিপাড়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মো. কবির হোসেন বয়াতি নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলার কাউখালীর ২টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে সদর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান ও আমড়াঝুড়ি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মো. জাহাঙ্গির হোসেন নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলার ভাণ্ডারিয়া উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে আনোয়ার হোসন মঞ্জু’র (জেপি) সমর্থিত সাইকেল প্রতীকের ধাওয়া ইউনিয়নের সিদ্দিকুর রহমান টুলু, নদমুলা মিয়ালকাঠী ইউনিয়নে সাইকেল প্রতীক নিয়ে মেজবাহ উদ্দিন আরিফ, গৌরিপুর ইউনিয়নে সাইকেল প্রতীক নিয়ে মজিবুর রহমান চৌধুরী এবং ভিটাবাড়িয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে এনামুল করিম পান্না নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়া এর আগে ওই উপজেলার তেলিখালী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মো. শামসুল হক বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলার মঠবিাড়িয়া উপজেলায় ৬টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে তুষখালী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান হাওলাদার, মিরুখালী ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু হানিফ খান, বেতমোড় ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে দেলোয়ার হোসেন আকন, আমড়াঝুড়ি ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে শারমিন জাহান, সাপলেজা ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে মিরাজ মিয়া এবং গুলিশাখালী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে রিয়াজুল ইসলাম ঝনো নির্বাচিত হয়েছেন।

জেলার নেছারাবাদের বলদিয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে সাইদুর রহমান, সোহাগদল ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে আব্দুর রশিদ, স্বরূপকাঠী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে আল আমিন পারভেজ, আটঘরকুরিয়া ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে মিঠুন হাওলাদার, জলাবাড়ি ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে তৌহিদুল ইসলাম, দৈহারী ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে জাহারুল ইসলাম, গুয়ারেখা ইউনিয়নে চশমা প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রব শিকদার, সমদেকাঠী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে হুমায়ুন বেপারী, সুটিয়াকাঠী নৌকা প্রতীক নিয়ে রুহুল আমিন অসীম আকন, স্যারেংকাঠী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে নজরুল ইসলাম নির্বাচিত হয়েছেন।

ভোলা:

ভোলার চরফ্যাশন, তজুমদ্দিন, বোরহানউদ্দিন ও মনপুরা উপজেলার মোট ১২টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে চরফ্যাশন উপজেলার ৫টি এবং বোরহানউদ্দিন উপজেলার ১টি নিয়ে মোট ৬টি ইউনিয়ন পরিষদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। অপরদিকে তজুমদ্দিন উপজেলার ৩টির মধ্যে ২টিতে এবং মনপুরা উপজেলার ২টির মধ্যে ১টি নিয়ে মোট ৩টি ইউনিয়ন পরিষদে বিদ্রোহী প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

চরফ্যাশন উপজেলায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যানরা হলেন- চরমাদ্রাজ ইউনিয়নে মো. আ. হাই, চরকলমী ইউনিয়নে কাউসার হোসেন মাস্টার, এওয়াজপুর ইউনিয়নে মাহবুবুর রহমান খোকন, জাহানপুর ইউনিয়নে নাজিম হোসেন হাওলাদার এবং হাজারিগঞ্জ ইউনিয়নে মো. সেলিম হাওলাদার। এছাড়া বোরহানউদ্দিন উপজেলার গঙ্গাপুর ইউনিয়নে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় মো. রিয়াজ উদ্দিন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

বোরহানউদ্দিন উপজেলার সাচড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মো. মহিবুল্ল্যাহ মৃধা, তজুমদ্দিন উপজেলার চাচড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবু তাহের এবং মনপুরা উপজেলার দক্ষিণ সাকুচিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অলিউল্ল্যাহ কাজল চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়া তজুমদ্দিন উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী অটোরিকশা মার্কায় শহিদুল্যাহ কিরন, শম্ভুপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. রাসেল মিয় মোটরসাইকেল মার্কা এবং মনপুরা উপজেলার হাজিরহাট ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নিজাম উদ্দিন হাওলাদার আনারস মার্কায় নির্বাচিত হয়েছেন।

সুনামগঞ্জ:

সুনামগঞ্জের ছাতকের সিংচাপইড় ও নোয়ারাই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে একটিতে নৌকার এবং আরেকটিতে বিদ্রোহ প্রার্থী বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন।

সিংচাপইড় ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী সাহাব উদ্দিন সাহেল ৫ হাজার ১২১ ভোটে জয়লাভ করেছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মোজাহিদ আলী (মোটরসাইকেল) প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩ হাজার ৬৫১ ভোট।

এ ইউনিয়নের ৯ ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য পদে ৫১ জন ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

নোয়ারাই ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর ভরাডুবি হয়েছে। এ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান দেওয়ান পীর আব্দুল খালিক রাজা চশমা প্রতীকে ৫ হাজার ৯০৮ ভোট পেয়ে বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আফজাল আবেদীন আবুল নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৪ হাজার ২০৭ ভোট।

গাজীপুর:

গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার ৬টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৫টিতে নৌকা মার্কার প্রার্থী এবং একটিতে স্বতন্ত্রপ্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। রাতে এই ফলাফল জানান রিটার্নিং কর্মকর্তার ফারিজা নূর ও মোহাম্মদ ওমর ফারুক।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রতীকের বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন, তুমলিয়া ইউনিয়নে মো. আবুবকর মিয়া বাক্কু, বক্তারপুর ইউনিয়নে মো. আতিকুর রহমান আকন্দ ফারুক, জাঙ্গালীয়া ইউনিয়নে গাজী সারোয়ার হোসেন, মোক্তারপুর ইউনিয়নে মো. আলমগীর হোসেন, বাহাদুরসাদী ইউনিয়নে মো. শাহাবুদ্দিন আহমেদ। জামালপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্রপ্রার্থী মোটরসাইকেলের প্রতীকে মো. খাইরুল আলম বিজয়ী হয়েছেন।

তুমলিয়া ও মোক্তারপুর ইউনিয়নে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় নৌকা প্রতীকের মো. আবুবকর মিয়া বাক্কু ও মো. আলমগীর হোসেন বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়।

ঝালকাঠি:

ঝালকাঠি জেলার ৩১টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৩০টিতেই আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা নির্বাচিত হয়েছেন। শুধু একটি ইউপিতে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী জয়ী হয়েছেন।

নির্বাচিতরা হলেন, ঝালকাঠি সদরের বিনয়কাঠিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী এ জে এম মঈন উদ্দিন, শেখেরহাটে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. নূরুল আমিন খান সুরুজ, গাবখান ধানসিঁড়িতে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আবুল কালাম মাসুম, গাভারামচন্দ্রপুরে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. গোলাম মাওলা মাসুম শেরওয়ানী, নবগ্রামে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. মুজিবুরল হক আকন্দ, নথুল্লাবাদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, বাসন্ডায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মোবারক হোসেন মল্লিক, কেওড়ায় বিনাপ্রতিদ্বন্ধীতায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আবু সাইদ খান ও কীর্ত্তিপাশায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুর রহীম মিয়া।

নলছিটি উপজেলার রানাপাশায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. শাহজাহান হাওলাদর, ভৈরবপাশায় আওয়ামী লীগ মনোনীত এ কে এম আবদুল হক, দপদপিয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত সোহরাব হোসেন বাবুল মৃধা, সুবিদপুরে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আ. গফফার খান, কুশঙ্গলে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আলমগীর হোসেন, সিদ্ধকাঠিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত জেসমিন আক্তার, মগরে আওয়ামী লীগ মনোনীত এনামুল হক শাহীন, মোল্লারহাটে আওয়ামী লীগ মনোনীত এ কে এম মাহাবুবুর রহমান, কুলকাঠিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত এইচ এম আখতারুজ্জামান বাচ্চু, নাচনমহলে আওয়ামী লীগ মনোনীত বিনাপ্রতিদ্বন্ধীতায় সিরাজুল ইসলাম সেলিম।

রাজাপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. নজরুল ইসলাম, সাতুরিয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত সৈয়দ মইনুল হায়দার নিপু, বড়ইয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. সাহাব উদ্দিন হাওলাদার, মঠবাড়িতে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. শাহজালাল হাওলাদার, শুক্তাগড়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত বিউটি সিকদার ও গালুয়ায় বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় গোলাম কিবরিয়া পারভেজ।

কাঁঠালিয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. মাহামুদুল হক নাহিদ, পাটিখালঘাটায় আওয়ামী লীগ মনোনীত শিশির দাস, চেঁচরীরামপুরে আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. হারুন অর রশিদ, আমুয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আমিরুল ইসলাম সিকদার, শৌলজালিয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মাহমুদ হোসেন রিপন ও আওড়াবুনিয়ায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. মিঠু সিকদার বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

পটুয়াখালী:

পটুয়াখালীর বাউফলে আটটিতে আওয়ামী লীগ ও একটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সেলিম রোজা বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন।

বেসরকারি ফলাফলে স্থানীয় সংসদ সদস্য আ স ম ফিরোজের ভাতিজা এনামুল হক আলকাছ মোল্লা ঘোড়া প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন। অপরদিকে কনকদিয়া ইউনিয়নে শাহিন হাওলাদার, ধুলিয়া ইউনিয়নে মু হুমায়ন কবির, বগা ইউনিয়নে মো. মাহামুদ হাসান হাওলাদার, আদাবাড়িয়া ইউনিয়নে মো. মন্জুর আলম হাওলাদার, কেশবপুর ইউনিয়নে অধ্যক্ষ সালেহ্ উদ্দিন পিকু, কাছিপাড়া ইউনিয়নে মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

এর আগে কালিশুরী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নেছার উদ্দিন জামাল ও কালাইয়া ইউনিয়নে এস এম ফয়সাল আহম্মেদ মনির মোল্লা নৌকা প্রতীকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

লক্ষ্মীপুর:

লক্ষ্মীপুরের কমলনগর ও রামগতির ছয়টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সব কয়টিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বিপুল ভোটে জয় পেয়েছেন।

নরসিংদী:

নরসিংদীর পলাশ উপজেলায় অনুষ্ঠিত দুই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে একটিতে নৌকার প্রার্থী সাবের উল হাই ও অন্যটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জাকির হোসেন নির্বাচিত হয়েছেন।

সোমবার রাতে পলাশ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার জোবাইদা খাতুন ডাঙ্গা ও গজারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন। এতে ডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে সাবের উল হাই নৌকা প্রতীকে ১৭ হাজার ২০৬টি ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী কাউছার মাহমুদ হাতপাখা প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ৬৪০ ভোট।

অন্যদিকে গজারিয়া ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্রপ্রার্থী জাকির হোসেন চশমা প্রতীকে ৭ হাজার ৩৫৯ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থী বদরুজ্জামান ভূঁইয়া নৌকা প্রতীকে পেয়েছে ৫ হাজার ৫৫৯ ভোট।

রাত সাড়ে ৮টার দিকে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুহাম্মদ নাজিম উদ্দিন ফলাফল ঘোষণা করেন।

বিজয়ীরা হলেন- কমলনগর উপজেলার তোরাবগঞ্জ ইউনিয়নে মির্জা আশরাফুর জামান রাসেল, হাজীরহাটে নিজাম উদ্দিন, চরফলকনে মোশারফ হোসেন বাঘা, রামগতি উপজেলার চরবাদামে শাখাওয়াত হোসেন জসিম, চরপোড়াগাছায় নুরুল আমিন ও চররমিজে মুজাহিদুল ইসলাম শিপন।

সোমবার (২১ জুন) সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোটগ্রহণ হয়।

 

Share This Post

Post Comment