পুলিশ সার্জেন্টের চোখকে ফাঁকি দিতে পারলো না চোর

বার্তা ডেস্কঃ পুলিশ সার্জেন্ট আলী আহম্মেদ, প্রতিদিনের মত ২৭ সেপ্টেম্বর রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনালের ইনকামিং চেকপোস্টে ডিউটি করছিলেন। ডিউটি করাকালীন একটি মোটর সাইকেল থামিয়ে কাগজপত্র যাচাই করছিলেন তিনি। মোটর সাইকেলের কাগজপত্র সন্দেহ হলে অধিকতর যাচাইয়ের জন্য বিআরটিএ কার্যালয়ে যোগাযোগ করেন তিনি। বিআরটিএ থেকে প্রাপ্ত তথ্য ও আটককৃত মোটর সাইকেলের কাগজপত্রের তথ্যের গরমিল রয়েছে।

এমন তথ্য জানার পর প্রকৃত মালিকের নাম ও মোবাইল নাম্বার বিআরটিএ থেকে সংগ্রহ করেন সার্জেন্ট আলী আহম্মেদ। এরপর সংগৃহীত নাম্বারে যোগাযোগ করে জানতে পারেন তার মোটর সাইকেলটি চুরি হয়েছে। মোটর সাইকেল চুরির ঘটনায় ২০১৯ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর বাড্ডা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন মোটর সাইকেলের প্রকৃত মালিক মোঃ হামিদুর রহমান হীরা। পরবর্তী সময়ে আটককৃত মোটর সাইকেল ও চালককে দারুস সালাম থানায় হস্তান্তর করে মোটর সাইকেলের প্রকৃত মালিককে বিষয়টি অবগত করেন সার্জেন্ট আলী আহম্মেদ।

এ বিষয়ে মোঃ হামিদুর রহমান হীরার অভিযোগের প্রেক্ষিতে বাড্ডা থানা পুলিশ তথ্য প্রযুক্তির সহায়তা ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২৮ সেপ্টেম্বর বংশাল এলাকা হতে মোঃ হোসেন ওরফে জুনু (৪৫) ও মোঃ রাকিব হাসান (২২) কে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃতদের বাড্ডা থানায় পুর্বের দায়ের করা মামলায় বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Share This Post

Post Comment