ইরাকে সরকার বিরোধী বিক্ষোভ অব্যাহত, গুলিতে নিহত ২৩

ডেস্কঃ  ইরাকে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে।  গতকাল শুক্রবার জনতার বিক্ষোভ দমন করতে গুলি চালিয়েছে পুলিশ। এতে এখন পর্যন্ত অন্তত ২৩ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। নিহতদের মধ্যে আটজনই রাজধানী বাগদাদের। এ ছাড়া আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন। নিরাপত্তা বিষয়ক কর্তৃপক্ষ এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

শুক্রবার বাগদাদে জমায়েত হওয়া বিক্ষোভকারীদের হটাতে রবার বুলেটের পাশাপাশি প্রচুর কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়া হয়। সাদা ধোঁওয়ায় ঢেকে যায় বাগদাদের মূল ব্রিজ চত্বরের চারপাশ।

ইরাকি পুলিশের পক্ষ থেকে শুক্রবার ২৩ জন বিক্ষোভকারীর মৃত্যুর খবর স্বীকার করা হয়েছে। আহত হয়েছে আরও কয়েক ডজন।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর শান্তির বার্তাতেও কাজ হচ্ছে না। অশান্ত ইরাকে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষের তীব্রতা ক্রমে বাড়ছে। সেই সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলেছে মৃত্যুমিছিলও। সব মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ইতিমধ্যেই ১০০ ছাড়িয়েছে। আহত দু-পক্ষের প্রায় ২ হাজার ৫০০ জন।

ইরাকে গত ১ অক্টোবর থেকে দুর্নীতি, বেকারত্ব, জীবনযাপনের খারাপ মান-এ সবের বিরুদ্ধে  বিক্ষোভ চলছে । ২০০৩-এ সাদ্দাম হুসেনের পতনের পর শিয়া সম্প্রদায়ই ইরাকের শাসনব্যবস্থা সামলাচ্ছে। তারাই গত বছর ক্ষমতায় এনেছে আদেল আব্দুল-মেহদিকে। এই বিক্ষোভ সামলানো এখন মেহদির কাছে বড় ধরনের পরীক্ষা।

সম্প্রতি দেশবাসীর উদ্দেশে ভাষণে মেহদি বলেন, ইরাকের সমস্যার কোনও ‘ম্যাজিক সমাধান’ নেই। বিক্ষোভকারীদের ধৈর্য ধরার পরামর্শ দেন তিনি। কিন্তু তাতে বিশেষ লাভ হয়নি। বরং প্রধানমন্ত্রীর কথা শুনে আরও ক্ষেপে ওঠেন বিক্ষোভকারীরা।

গত কয়েকদিনে বিক্ষোভকারীদের নিয়ন্ত্রণ করতে গুলি চালানোর অভিযোগ উঠেছে নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে। বাগদাদ, নাসসিরিয়া, আমারা, বাকুবাতে নিহত হয়েছে কমপক্ষে ৬০ জনের। পরিস্থিতিতে নিয়ন্ত্রণে কার্ফু জারি হয়েছে। বন্ধ রাস্তাঘাট, সেনা কনভয় ছাড়া কিছু চোখে পড়ছে না। ন্যূনতম বেতন স্থির করতে আর্থিক সংস্কারের আশ্বাস দিয়েছেন মেহদি। কিন্তু সে আশ্বাসে কোনো কাজ হচ্ছে না।

Share This Post

Post Comment

%d bloggers like this: