পঁয়ত্রিশ বছর কাটালেন এক কাপড়ে সিরিয়ান এক নাগরিক

আমরা প্রায়শ দেখি ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ প্রতিদিন একই রকম ধূসর রঙের টি-শার্ট পরেন। কারণ হিসেবে তিনি জানিয়েছে প্রতিদিন কোন পোশাক পরবেন এই চিন্তা করে সময় নষ্ট করার বদলে দিনের পুরোটা সময় গুরুত্বপূর্ণ কাজে খরচ করাই তার কাছে শ্রেয় মনে হয়।

শুধু জাকারবার্গ নন, স্টিভ জবস, ডিন ক্যামেন কিংবা ক্রিস্টোফার নোলানের মতো অনেক সফল ব্যক্তির প্রতিদিন একই রঙের পোশাক পরার  অভ্যাস রয়েছে। তবে এবার একই রঙের পোশাক পরে আলোচনায় এসেছেন সিরিয়ার এক ব্যক্তি। কারণ সিরিয়ান এই নাগরিক এক দুই বছর নয়, দীর্ঘ পঁয়ত্রিশ বছর হলুদ রঙের পোশাক পরছেন। শুধু হলুদ রঙের শার্ট বা টি-শার্ট নয় প্যান্ট, আন্ডারওয়্যার এমনকি তার নিত্য ব্যবহার্য মাথার টুপি, ছাতা, ফোনের কভার ও বাসার অনেক আসবাবও হলুদ রংয়ের।

আবু জাকুর নামের এই ব্যক্তির বাড়ি সিরিয়ার আলেপ্পো শহরে। ১৯৮৩ সালের জানুয়ারি মাস থেকে তিনি হলুদ রঙের পোশাক পরা শুরু  করেছেন। কারণ তার কাছে হলুদকে ভালোবাসার প্রতীক বলে মনে হয়। সেই থেকে শুরু। এরপর কেটে গেছে দীর্ঘ সাড়ে তিন দশক। এই পুরোটা সময় তিনি একদিনের জন্য হলুদ ব্যতীত অন্য কোনো রঙের পোশাক পরেননি।

সব সময় কেন হলুদ পরেন? একটি চীনা বার্তা সংস্থার এমন প্রশ্নের জবাবে আবু জাকুর বলেন, ‘হলুদ ছাড়া অন্য কোনো রঙের পোশাক পরলে নিজেকে নিষ্প্রাণ মনে হয়। ফলে অন্য কোনো পোশাক পরে আমি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি না।’

প্রতিদিন হলুদ রঙের পোশাক পরে থাকায় আবু জাকুর এখন আলেপ্পোর খুবই পরিচিত মুখ। পথে চলতে অনেকেই তার সঙ্গে কথা বলেন, ছবি তোলেন, আবার অনেকে হাসাহাসিও করেন। এই খ্যাতির পাশাপাশি অনেক বিড়ম্বনা তিনি সহ্য করেন। কারণ যুদ্ধ বিধ্বস্ত সিরিয়ার অনেকেই তাকে বাশার আল আসাদ, আইএস কিংবা আল-কায়েদার চর মনে করে। তবে যে যাই বলুক, আবু জাকুরের তাতে কিছু যায় আসে না। তিনি মৃত্যুর দিন পর্যন্ত হলুদ রঙের পোশাক পরতে চান। রাইজিং বিডি।

Share This Post

Post Comment

%d bloggers like this: