পরিস্থিতি ভালো থাকলে ভোট দিতে অবশ্যই যাব

বার্তা ডেস্কঃ ভোট দিতে যাব কি-না, তা এখনই বলতে পারছি না। নানা ধরনের কথা শুনতে পাচ্ছি। কারণ গন্ডগোল হলে ভোট দিতে যাওয়ার প্রশ্নই আসে না। পরিস্থিতি ভালো থাকলে ভোট দিতে অবশ্যই যাব।

রোববার ভোটের দিনের ভাবনা নিয়ে জানতে চাইলে ঢাকা আফতাব নগরের বাসিন্দা ছালমা আক্তার (৩৫) এভাবে জবাব দেন। তিনি একজন গৃহিণী।

রোববার (৩০ ডিসেম্বর) দেশে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ৩০০ আসনের মধ্যে একটি ছাড়া বাকি সবগুলোতে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ চলবে।

নির্বাচনে প্রধান দুই দল আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ অন্যান্য সব দল অংশ নিচ্ছে। তবে নির্বাচনী প্রচারণার ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন সবার জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত করতে পারেনি বলে অভিযোগ জানিয়ে আসছিল বিএনপি, অপরদিকে আওয়ামীলীগ বলছে এবার জনগণের অংশ গ্রহনে সুষ্ঠ ও অবাধ নির্বাচন হবে।

ভোটের দিন নিয়ে বিভিন্ন স্তরের মানুষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অনেকের মধ্যেই এক ধরনের ভয় কাজ করলেও এখন কিছুটা হলেও সংশয় কেটেছে । কোনো ধরনের সহিংস পরিস্থিতির কথা শুনলে তারা ভোট দিতে কেন্দ্রে যাবেন না। আবার কেউ কেউ জানিয়েছেন, তারা সকাল সকাল ভোট কেন্দ্রে যাবেন। তারা মনে করেন ভোটের দিনের পরিবেশ শান্তিপূর্ণই থাকবে।

সঞ্জয় সরকার, বি এ পাশ  করে  কাপড়ের ব্যবসা করছেন যাত্রাবাড়ী শনিরআখড়া গোবিন্দপুর বাজারে। তিনি স্থানীয় গোবিন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের ভোটার। ভোট দেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ভোট দেয়ার সিদ্ধান্ত এখনও নেইনি। আগামীকাল পরিস্থিতি কেমন থাকে সেটার ওপর ভিত্তি করে ভোট দেয়ার সিদ্ধান্ত নেব। ছোট ব্যবসা করি, ভোট দিতে গিয়ে তো কোনো ধরনের ঝুঁকি নিতে পারি না।’

গুলিস্তানের বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের কর্মচারী বাবুল বলেন, ‘পরিস্থিতি খুব একটা সুবিধার মনে হচ্ছে না। আমি ভোট দিতে যাব না। আমার বাড়ি বরিশাল বাকেরগঞ্জের ফরিদপুরে। সেখানে আমার স্ত্রীকে ফোন করে জানিয়ে দিয়েছি বাড়ি বসে ভালমন্দ রান্না-বান্না করে খাও, ভোট দিতে যাওয়ার দরকার নেই।’

রাজধানীর স্বামীবাগের বাসিন্দা মো. কায়েস আহমেদ মিতালী বিদ্যাপীঠ ভোট কেন্দ্রের ভোটার। তিনি বলেন, ‘আমাদের এখানে ইভিএমে (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) ভোট হবে। আমি ইতোমধ্যে ইভিএমের মাধ্যমে পরীক্ষামূলক (মগ) ভোটও দিয়েছি। আমি এখনকার বাসিন্দা, আগামীকাল সকাল সকাল ভোট দেব ইনশাআল্লাহ। ভোট নিয়ে কোনো আশঙ্কা আমি করছি না।’

উত্তর যাত্রাবাড়ীর বাসিন্দা কামাল হোসেন বলেন, ‘আমার ভোট দেয়ার ইচ্ছা আছে, বাকি আল্লাহর ইচ্ছা।’

এবার সারাদেশে মোট ভোটার ১০ কোটি ৩৮ লাখ ২৬ হাজার ৮২৩ জন। এরমধ্যে নারী ৫ কোটি ১৪ লাখ ৫৫ হাজার ২০৩ জন ও পুরুষ ভোটার ৫ কোটি ২৩ লাখ ৭১ হাজার ৬২০ জন। মোট ভোট কেন্দ্র থাকবে ৪০ হাজার ৫১টি।

২৯৯ আসনের মধ্যে ঢাকা-৬, ঢাকা-১৩, চট্টগ্রাম-৯, খুলনা-২, রংপুর-৩ ও সাতক্ষীরা-২ আসনে ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হবে। বাকি আসনে ভোটগ্রহণ হবে সনাতন পদ্ধতিতে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে।সর্বশেষ জানতে হলে অপেক্ষা করতেই হবে।

Share This Post

Post Comment

%d bloggers like this: