নোয়াখালীর কথিত জিনের বাদশা শ্রীনগরে আটক

ডেস্কঃ  মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় কথিত নামধারী জিনের বাদশা মো. মিজানুর রহমান ওরফে সুমনকে (৩০) আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলায় পূর্ব-দেউলভোগ এলাকা থেকে গ্রামবাসী তাকে আটক করে পুলিশের সোপর্দ করে। সুমন নোয়াখালী জেলার সেনবাগ থানার বাদেকান্দি গ্রামের দলিলুর রহমানের ছেলে।

প্রতারণার স্বীকার শিউলি ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ১১মে শবে বরাতের রাতে আমার মোবাইলে একটি ফোন আসে। রিসিভ করলে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে আমার সম্পর্কে নানা বিষয় জানতে চায়। আলাপচারিতার একপর্যায়ে অর্থ-সম্পদসহ বিভিন্ন প্রলোভন দেখায়। পরবর্তীতেও ওই ব্যক্তি বিভিন্ন নম্বর থেকে বিভিন্ন কন্ঠে ফোন করে মোটা অংকের টাকা দাবি করেন। টাকা দিতে না চাইলে বিষধর সাপ চালান করে আমার স্বামী-সন্তানদের মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরে সংসার রক্ষার্থে জিনের বাদশার দেওয়া বিভিন্ন নম্বরে বিকাশের মাধ্যমে প্রায় ৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা পাঠাই।

এরপরও ওই ব্যক্তি আরও টাকা দাবি করলে বুঝতে পারি তিনি ভণ্ড। পরে মোটা অংকের টাকার প্রলোভন দেখিয়ে তাকে কৌশলে শ্রীনগর নিয়ে আসি। পরে আত্মীয়স্বজন ও গ্রামবাসীর সহযোগিতায় ওই প্রতারক ভণ্ড জিনের বাদসাকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়।

শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম আলমগীর হোসেন  জানান, কথিত জিনের বাদশা মিজানুর রহমান ওরফে সুমন, শিউলি ইসলামের সঙ্গে বিভিন্ন সময় মোবাইল ফোনে কথা বলে স্বর্ণালঙ্কার, অর্থসম্পদের প্রলোভন দেখিয়ে সক্ষতা গড়ে তোলে। পরে বিভিন্ন সময় স্বামী-সন্তানকে মেরে ফেলার ভয়ভীতি দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়।

বিকেলে শ্রীনগর এলে স্থানীয়রা তাকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। ভণ্ড জিনের বাদশা সুমনকে থানা হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

Share This Post

Post Comment

%d bloggers like this: